সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

জানুয়ারী, ২০২১ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

রহস্য গল্প: ৯ পর্বতারাহীর রহস্যময় মৃত্যুর ঘটনা

রহস্য গল্প: ৯ পর্বতারাহীর রহস্যময় মৃত্যুর ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসের সবচেয়ে রহস্যময় মৃত্যু র ঘটনাগুলোর একটি হলো Dyatlov Pass incident. কারণ ঘটনা ঘটার পর থেকে এখন পর্যন্ত এর কোন রহস্য বের করা যায়নি। ১৯৫৯ সালের কথা। তৎকালীন উরাল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের (বর্তমান উরাল স্টেট ইউনিভার্সিটি) ৮ জন ছাত্র ও ২ জন ছাত্রী ওটোর্টেন পর্বতারোহণের জন্য বের হলেন। অভিযাত্রীদ ল প্রথমে ট্রেনে রাশিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ Sverdlovsk Oblast এর একটি শহর ইভডেলে পৌঁছলেন জানুয়ারির ২৫ তারিখ। এরপর তাঁরা উত্তর দিকে ‘ভিজাই’তে গেলেন ট্রাকে করে। এখানেই মনুষ্যবসতির শেষ, এরপর পুরোই জনমানবহীন। জানুয়ারির ২৭ তারিখ অভিযাত্রীদল ওটোর্টেন পর্বতের উদ্দেশ্যে রওনা দিলেন। পথে এক অভিযাত্রী অসুস্থতার কারণে ফিরে আসেন। এবার অভিযাত্রী দলের সদস্য হয়ে গেল নয় জন। পরে অভিযাত্রীরা যেখানে সর্বশেষ ক্যাম্প স্থাপন করেছিলেন, সেখানে তাঁদের ডায়রি ও ক্যামেরা পাওয়া যায়। যেটি থেকে অভিযাত্রীদল কোন পথে এগিয়েছিলেন তার একটি ধারণা পাওয়া যায়। ৩১ জানুয়ারি অভিযাত্রীদল একটি উচ্চ স্থানের প্রান্তে এসে পৌঁছলেন ও পর্বতারোহণের জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করলেন। ফেব্রুয়ারির ১

হুমায়ূন আহমেদের ছোট গল্প “নিজাম সাহেবের ভূত”

হুমায়ূন আহমেদের ছোট গল্প “নিজাম সাহেবের ভূত পলিথিনের ব্যাগে পাঁচটা শিং মাছ নিয়ে নিজাম সাহেব বাড়ি ফিরছেন। মাছগুলি যেন মরে না যায় সে জন্যে বুদ্ধি করে ব্যাগে খানিকটা পানি নিয়েছিলেন। এখন মনে হচ্ছে ব্যাগে পানি নেয়াটা চূড়ান্ত বোকামি হয়েছে। পানি টুইয়ে চুইয়ে পড়ছে। তার প্যান্ট ইতিমধ্যেই মাখামাখি হয়ে গেছে। নিজাম সাহেব লন করেছেন, তার ৪১ বছরের জীবনে তিনি বুদ্ধি করে যে কটা কাজ করেছেন সব কটাই চূড়ান্ত নির্বুদ্ধিতা বলে পরবর্তী সময়ে প্রমাণিত হয়েছে। আসলে বুদ্ধি খাটিয়ে তার কিছু করাই ঠিক না। পাঁচটা শিং মাছের দাম নিয়েছে চল্লিশ টাকা। ঠকেছেন বলে মনে হচ্ছে। প্রতিটি শিং মাছের দাম পড়েছে আট টাকা। শিং মাছ সস্তা ধরনের মাছ–সাপের মত কিলবিল করে। এই মাছ আট টাকা পিস হতেই পারে না। বাড়ি ফিরলে স্ত্রীর কাছে প্রচণ্ড ধমক খেতে হবে। নিজাম সাহেবের স্ত্রী ফরিদা–সুপারি গাছের মত সরু। তার বুদ্ধিও সরু। তেজ ভয়াবহ। ফরিদার সরু বুদ্ধি এবং ভয়াবহ তেজের কাছে নিজাম সাহেব কেঁচোর মত হয়ে থাকেন। মাঝে মাঝে মনে হয় মাপ মত গর্ত পেলে গর্তে ঢুকে যেতেন। বাজার দেখে, ফরিদা কি বলতে পারে তা নিজাম সাহেব কলপনা করতে করতে যাচ্ছেন। কল্পনা করতে ভাল লাগছে না। কি

ঝড়ের কবলে লন্ডভন্ড জাহাজ এবং একজন যাত্রীর ঘটনা

ঝড়ের কবলে লন্ডভন্ড জাহাজ এবং একজন যাত্রীর ঘটনা সমুদ্রের মাঝখানে এক জাহাজ প্রচন্ড ঝড়ের মধ্যে পরে লন্ডভন্ড হয়ে গেল। সেই জাহাজের বেঁচে যাওয়া এক যাত্রী ভাসতে ভাসতে এক নির্জন দ্বীপে এসে পৌছালো। জ্ঞান ফেরার পর প্রথমেই সে আল্লাহর কাছে প্রানখুলে ধন্যবাদ জানালো তার জীবন বাঁচানোর জন্যে। প্রতিদিন সে দ্বীপের তীরে এসে বসে থাকতো যদি কোনো জাহাজ সেদিকে আসে এই আশায়। কিন্তু প্রতিদিনই তাকে হতাশ হয়ে ফিরে আসতে হতো। এরই মধ্যে সে সমুদ্রতীরে তার জন্যে একটা ছোট ঘর তৈরী করে ফেললো। সমুদ্রের মাছ ধরে এবং বন থেকে ফলমূল শিকার সে বেঁচে থাকলো। এরই মধ্যে সে একদিন খাবারের খোঁজে বনের মধ্যে গেল। বন থেকে সে যখন ফিরে এলো তখন দেখলো যে তার রান্না করার চুলা থেকে আগুন লেগে পুরো ঘরটিই ছাই হয়ে গিয়েছে এবং তার কালো ধোঁয়ায় আকাশ ভরে গিয়েছে। লোকটি চিৎকার করে উঠলো,‘হায় আল্লাহ,তুমি আমার ভাগ্যে এটাও রেখেছিলে!’ পরদিন সকালে এক জাহাজের আওয়াজে তার ঘুম ভাঙলো। জাহাজটি সেই দ্বীপের দিকে তাকে উদ্ধার করার জন্যই আসছিলো। সে অবাক হয়ে বললো, ‘তোমরা কিভাবে জানলে যে আমি এখানে আটকা পরে আছি!’ জাহাজের ক্যাপ্টেন জানালো,‘তোমার জ্বালানো ধোঁয়ার সংকেত দেখে।’

‘পাখি ও মৌমাছির’ একটি শিক্ষামূলক ঘটনা

‘পাখি ও মৌমাছির’ একটি শিক্ষামূলক ঘটনা একদিন বিকেলবেলা একটি পাখি একটি গাছের ডালে এসে বসল। গাছের অন্য ডালে একটি মৌমাছির বাসাও ছিল। সেদিক থেকে একটি ছোট্ট মৌমাছি পাখিটির সামনে দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল। পাখিটি মৌমাছিটিকে কাছে ডেকে বল, “কেমন আছ মৌমাছি ভাই?” মৌমাছিটি উত্তর দিল, “ভাল। তুমি কেমন আছ?” পাখি বলল, “ভাল। অনেক দিন ধরেই তোমাকে একটি কথা বলব বলব ভাবছি।” মৌমাছি জিজ্ঞেস করল, “কী কথা পাখি ভাই?” পাখিটি বল, “মধুর জন্য তুমি কত কঠোর পরিশ্রম কর, কিন্তু লোকজন তোমাকে না জানিয়েই তা নিয়ে যায়। এতে তোমার দুঃখ হয় না?” মৌমাছিটি উত্তরে বলল, “না।” পাখিটি অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করল, “কেন?” হাসিমুখেই মৌমাছি জবাব দিল, “কারণ তারা কখনই আমার মধু তৈরির শিল্পকে আমার কাছ থেকে চুরি করতে পারবে না।” নিজের দৃষ্টিভঙ্গী সবসময় ইতিবাচক রাখুন। ছোট্ট মৌমাছির মত হওয়ার চেষ্টা করুন, আকারে ছোট হলেও হৃদয়ের দিক দিয়ে মহৎ।

একটি ইঁদুর ও চাষীর শিক্ষামূলক ঘটনা

একটি ইঁদুর ও চাষীর শিক্ষামূলক ঘটনা একটি ইঁদুর গর্ত করে লুকিয়ে থাকত এক চাষীর বাড়িতে। চাষী আর তার স্ত্রীকে থলে থেকে কি একটা বের করতে দেখলো ইঁদুরটি। থলেতে খাবার আছে ভেবে ইঁদুরটি এগোতে থাকে থলের দিকে। কিছুটা এগোতেই ইঁদুরটি লক্ষ্য করলো থলেতে খাবারের কিছুই নেই বরং আছে ইঁদুর ধ’রার ফাঁ’দ। তা দেখে পিছিয়ে আসতে লাগলো ইঁদুরটি। বাড়ির পিছনে থাকা পায়রাকে গিয়ে ইঁদুরটি বলল, ইঁদুর ধ’রার ফাঁ’দ এনেছে বাড়ির মালিক। কথাটা শুনে পায়রা হাসতে হাসতে বলল তাতে আমা’র কি? ওই ফাঁ’দে আমি তো কখনই পড়বো না। একথা শুনে ইঁদুর ‘হতাশ হলো এবং ঠিক করল একথা সে মুরগিকে জানাবে। ইঁদুরটিকে ফের হেয় করল মুরগি এবং মুরগি জানালো এটা তার সমস্যা নয়। ছাগলকে একথা শোনানোর জন্য ইঁদুর দৌড়ে গেল মাঠের মধ্যে। কথাটি শোনার পর ছাগল মাঠে লুটোপুটি খেতে লাগলো। একটি বি’ষাক্ত সা’প ওই ফাঁ’দে আট’কা পরে রাতের বেলায়। সেই শব্দ শুনে চাষির স্ত্রী ফাঁ’দের কাছে আসে এবং সা’পের লেজকে ইঁদুরের লেজ ভেবে ভুল করে এবং বি’ষধর সা’পের কামড় খায়। অবস্থা খারাপ দেখে ওঝাকে খবর দিলো চাষী। পায়রা জুস খাওয়ানোর পরামর্শ দেন ওঝা। চাষির দুর্দিনে তার আ’ত্মীয় স্বজনরা সকলে

একজন জেলে ও ব্যবসায়ীর অনুপ্রেরণা মূলক গল্প

একজন জেলে ও ব্যবসায়ীর অনুপ্রেরণা মূলক গল্প The fisherman and the businessman ব্রাজিলের সমুদ্র তীরবর্তী একটি ছোট্ট গ্রাম। সুন্দর সকাল। জেলেরা ছোট ছোট নৌকা নিয়ে বেড়িয়ে পড়েছে। সৈকতে বসে জেলেদের আসা-যাওয়া দেখছেন আর সমুদ্রের গর্জন শুনছেন এক ব্যবসায়ী ভদ্রলোক। একটি জেলে নৌকা ফিরে এসেছে। খানিকটা অবাক হয়ে তিনি এগিয়ে গেলেন। দেখলেন জেলেটি বেশ কিছু বড় সাইজের মাছ পেয়েছে। জিজ্ঞেস করলেন “কি হে বাপু! এত সক্কাল সক্কাল ফিরে আসলে যে?” জেলে উত্তরে জানালো “এই মাছগুলো বিক্রি করেই আমার পরিবারের আজকের খাওয়া পড়া চলে যাবে!” উত্তর শুনে বেচারার আক্কেল গুড়ুম! বললেন বাকি দিন তুমি কী করবে? জেলে জানালো “মাছের বেশির ভাগ অংশ বিক্রি করে তা দিয়ে বাজার করব। এরপর বাড়ি ফিরে যাব। রান্না হলে খেয়ে দেয়ে দিব ঘুম। ঘুম থেকে উঠে বাচ্চাকাচ্চাদের সাথে কিছুক্ষণ খেলাধুলা করব। সন্ধ্যায় যাব বাজারে। চা-টা খাব, আড্ডা দিব। এরপর বাড়ি ফিরে খেয়ে দেয়ে দিব ঘুম!” সেই ব্যবসায়ী তখন জেলেকে বললেন “শোনো! তোমার সময়গুলো এভাবে নষ্ট করো না! আমি বিজনেস ম্যানেজমেন্টের উপর পিএইচডি করা লোক। তোমাকে কিছু বয়ান দেই। এগুলো মেনে পরিশ্রম করলে তুমি একজন সফল মানুষ হত